কুড়িগ্রামে জ্বর ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ জ্বর ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে কুড়িগ্রাম শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জোবাইদুল ইসলামের মৃত্যু হয়েছে। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বুধবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। রংপুর থেকে ঢাকা নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
উপ-সহকারী প্রকৌশলী জোবাইদুল ইসলামের বাড়ি রাজশাহী জেলায় বলে জানা গেছে। সে কুড়িগ্রাম শহরের টেক্সটাইল এলাকায় স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। তার বয়স ৩০ বছর। তিনি কুড়িগ্রাসে যোগদানের মাধ্যমে চাকুরী জীবন শুরু করেন। এখানে সে প্রায় তিন বছর ধরে কর্মরত ছিল। মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর থেকেই কুড়িগ্রামে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
পারিবারিক ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, তীব্র জ্বর আর শ্বাস কষ্ট নিয়ে গত মঙ্গলবার রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। কিন্তু সেই রিপোর্ট এখনো পাওয়া যায়নি।
এ দিকে প্রকৌশলী জোবায়দুল ইসলাম যে এলাকায় ভাড়া ছিলেন সেখানকার মানুষের মাঝে কিছুটা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। এলাকাবাসীর দাবী নিহত প্রকৌশলী করোনায় মৃত্যু হয়েছে না ডেঙ্গুতে হয়েছে তা দ্রুত নিশ্চিত হয়ে প্রশাসনকে লকডাউনের বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। তবে বাড়ির মালিকের ছেলের দাবী তিনি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন।
মৃত্যুর পর তার মরদেহ নিজ বাড়ি রাজশাহীতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৩০ বছর।
কুড়িগ্রাম শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মেহেদী ইকবাল তার মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন।

Share This: