রৌমারীতে সীমানা সংক্রান্ত বিরোধে নিহত-১, গ্রেফতার-২

ষ্টাফ রিপোর্টার/রৌমারী প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলায় বসত-ভিটা জমির সীমানা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে একজন নিহতের ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তি বড়াইকান্দি গ্রামের মৃত টুনু মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম।
বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের চর বড়াইকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে নিহতের ছেলে বাদি হয়ে রৌমারী থানায় দশজনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, চর বড়াইকান্দি গ্রামের নইবর আলীর ছেলে মুকুল হোসেন (৪৫) ও তার ছেলের বউ আবুল হোসেনের স্ত্রী ছাবিয়া বেগম (৪৮)।
স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, টুনু মিয়ার ছেলে রফিকুল ও একই গ্রামের নইবর আলীর ছেলে আবুল হোসেন (৪৪) গং এর সাথে বসতভিটা সীমানা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিলো। এরই জের ধরে বুধবার শেষ বিকেলের দিকে আবুল হোসেন গং জোর পূর্বক রফিকুলের ভোগদখলিয় ভিটায় টিন দিয়ে বেড়া দিতে থাকে। এসময় নিহতের ছোট ছেলে রায়হান মিয়া বাধা দিলে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এক পর্যায় আবুল হোসেনের লোকজন রফিকুল ইসলামের মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রৌমারী স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাত ৮টার দিকে প্রতিমধ্যে তিনি মারা যান।
এ ব্যাপারে রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু মো. দিলওয়ার হাসান ইনাম জানান, এ ঘটনায় নিহতে ছেলে ১০ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মরদেহ উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং অভিযুক্তদের মধ্যে ২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Share This: