ধরলার পানি বিপদসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপরে

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :  উজানের ভারী বৃষ্টির ঢলে কুড়িগ্রামে আবারো পানি বৃদ্ধি পেয়ে নদ-নদী অববাহিকার নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়ে পড়েছে। সেতু পয়েন্টে ধরলার পানি বিপদসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তলিয়ে গেছে এসব এলাকার আমন ক্ষেতসহ বিভিন্ন ফসল। পানি বাড়ার সাথে সাথে তীব্র হয়ে উঠেছে ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তার ভাঙ্গন। পর পর ৫ম দফা বন্যায় নদী পাড়ের মানুষজন ফসল হারানোর পাশাপাশি ঘর-বাড়ি হারিয়ে নি:স্ব হয়ে পড়ছে।
সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান জানান, এ বছর বন্যায় নদী পাড়ের মানুষেরা খুবই কষ্টে দিনে পার করছে। পানি নেমে যাওয়ার পর মানুষজন যখন ঘুরে দাড়ানোর চেষ্টা করছে তখনই আবারও বন্যার পানি এসে ফসলসহ ঘর-বাড়িতে ঢুকে পড়ছে। এছাড়াও আমার ইউনিয়নের গত দুই সপ্তাহে অনন্ত: শতাধিক ঘর-বাড়ি ধরলা নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।


কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: আরিফুল ইসলাম জানায়, উজানে ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে এ বন্যার পানি দীর্ঘ স্থায়ী হবে না। দু’একদিনের মধ্যে পানি নেমে যাবে। আর এই মুহুর্তে যেসব এলাকায় ভাঙ্গন শুরু হয়েছে সেসব এলাকায় জরুরী ভিত্তিতে ভাঙ্গন ঠেকানো চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আশা করছি পানি কমে গেলে ভাঙ্গনও কমে আসবে।

Share This: